spot_img

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় তুলে এবার রাস্তায় সালাউদ্দিন হটাও আন্দোলন

- Advertisement -

বেশ কিছুদিন যাবত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বাফুফে প্রেসিডেন্ট কাজী সালাউদ্দিন বিরোধী আন্দোলন জোরেশোরে চলছে। বাফুফের অফিসিয়াল পেজের প্রতিটি পোস্টে হাজার হাজার সালউদ্দিন বিরোধী মন্তব্য পড়ছে।

ইতিমধ্যে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে সালাউদ্দিন গংদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন। আগামীকাল চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন কাজীর দেউরিতে মানববন্ধনের ঘোষণা দিয়েছে সেখনকার ফুটবল সমর্থকরা। এই আন্দোলনে এক হয়ে কাজ করছে বাংলাদেশের বিভিন্ন ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা। সবার একটাই অভিযোগ বাংলাদেশের ফুটবলকে ধ্বংসের দারপ্রান্তে নিয়ে গেছে বর্তমান বাফুফে কমিটি।

বাফুফের বর্তমান প্রেসিডেন্ট কাজী সালাউদ্দিন ১২ বছর যাবৎ এই পদে দায়িত্বরত আছেন। কিন্তু তার নেতৃত্বে বাফুফে এই ১২ বছরে বাংলাদেশের ফুটবলের উন্নতি দূরে থাক নিয়ে গেছেন খাদের কিনারে। গত নির্বাচনের সময় বাফুফে বস কাজী সালাউদ্দিন ঘোষনা দিয়েছিলেন তার নেতৃত্বে ২০২২  সালের কাতার বিশ্বকাপে খেলবে বাংলাদেশ। তবে তার সে কথা মুখের বুলি হয়েই রয়ে গেছে। বাংলাদেশ ফুটবল দলের ফিফা র‌্যাঙ্কিং যে ২০০ ছুঁই ছুঁই। ১৯৭তম স্থান থেকে ঘুরে এসে বর্তমানে ১৮৭তে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। ওনার এই ১২ বছরে বাংলাদেশ ফুটবল দলের কোচ বদলেছে ১৪বার। কিন্তু সফলতার ধারে কাছেও ঘেষতে পারেনি কেউ।

এই ১২ বছরে তার সফল্য বলতে তিনি বলেন তার সময়ে মেসি এসে খেলে গেছে বাংলাদেশে। কিন্তু এতে বাংলাদেশ ফুটবলের কোনো লাভ কি হয়েছে?  সে প্রশ্ন থেকেই যায়। তাছড়া তিনি আরেকটি কথা ফলাও করে প্রচার করেন, তার সময়ে নিয়মিত ঘরোয়া লিগ হয়েছে। কিন্তু কোনোবারই একটি নির্দিষ্ট সূচি নির্ধারন করতে পারেনি বাফুফের লিগ কমিটি।

গত ১২ বছরে ক্লাবগুলোকে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি বাফুফে। নেই কোনো ফুটবল একাডেমি এমনকি জাতীয় দলের প্লেয়ারদের ফিটনেস ঠিক রাখার জন্য দিতে পারেনি কোনো জিমনেশিয়াম। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের বেহাল দশার উন্নয়ন ঘটাতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ বাফুফে। তৃণমূল থেকে প্লেয়ার তুলে আনার কোনো পরিকল্পনা নেই দেশের ফুটবলের সর্বোচ্চ এই সংস্থার। মাঠে দর্শক টানার জন্য নিতে পারেনি কোনো দৃশ্যমান পদক্ষেপ। ফলে দর্শকশূন্য থাকে ঘরোয়া লিগের ম্যাচগুলো। এই যুগেও ঘরোয়া লিগের নিন্মমানের সম্প্রচারের মাধ্যমে খেলা দেখানো হয়। যা ফুটবল প্রেমীদের বিমুখ হওয়ার অন্যতম কারণ।

এসব কর্মকান্ডের দায় এড়াতে পারেনা বাফুফে। গত ১৪ই সেপ্টেম্বর ঢাকায় মানববন্ধন করে ফুটবল প্রেমীরা। কিন্তু তাদের রাস্তার ছেলে বলে প্রকাশ্য মিডয়ায় অপমান করেছেন বাফুফে বস কাজী সালাউদ্দিন। সবমিলিয়ে আরো বেশি ক্ষেপে গেছে বাংলার ফুটবল প্রেমীরা। ইতিমধ্যে বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ, লিভারপুল, জুভেন্টাস, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানির মত দলের বাংলাদেশি ফ্যান গ্রুপগুলো এক হয়ে আন্দোলনে নামছে। এর সাথে নিরপেক্ষ কিছু ফ্যান গ্রুপ তথা ফুটবল জগৎ, ফুটবল কর্নারের মত গ্রুপগুলোও একাত্মতা ঘোষণা করেছে এই আন্দোলনের সাথে।

এখন দেখার অপেক্ষা বাফুফের তৈরী কাউন্সিলরদের ভোটে ফুটবল প্রেমীদের আন্দোলন কতটা প্রভাব ফেলতে পারে।  দিন শেষে  প্রসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটাধিকার যে বাফুফের মদদপুষ্ট এসব কাউন্সিলরদের।

লেখাটি শেয়ার করুন

spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Related articles

আরো খবর

বিজ্ঞাপনspot_img

LATEST ARTICLES

2,892FansLike
8FollowersFollow
813FollowersFollow
80SubscribersSubscribe