spot_img

ম্যাচ রিভিউঃ মায়োর্কা বনাম এফসি বার্সেলোনা- লা লীগা, ২৮ তম রাউন্ড।

- Advertisement -

রিভিউঃ প্রায় তিন-চতুর্থাংশ খেলা হওয়ার পর বন্ধ হয়ে গেছিলো লা লীগা। করোনা মহামারীর জন্য স্থগিত ছিলো বিশ্বের প্রায় সকল স্পোর্টস ইভেন্টস। লা লীগা ৯ই মার্চ শেষ খেলা হওয়ার পর পুনরায় মাঠে গড়ালো ১২ জুন। এ যেনো নতুন এক সিজন শুরু করলো ক্লাব ফুটবল। চলতি সিজনে এওয়ে পাঁচটি ম্যাচ হেরেছে বার্সেলোনা। আবার অন্যদিকে রাইভাল রিয়াল মাদ্রিদ আছে পয়েন্ট টেবিলে মাত্র দুই পয়েন্ট নিচে। স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিলো বার্সার জন্য।

করোনা ক্রাইসিসের পর বার্সা প্রথম মুখোমুখি হলো মায়োর্কা’র। যদিও সহজ প্রতিপক্ষ, কিন্তু এসিজনে বার্সার ত্রাস এওয়ে ম্যাচ। ইন্জুরি থেকে ফিরেছে নাম্বার নাইন লুইস সুয়ারেজ। বার্সা বস সেতিয়েনের স্কোয়াডে শুধু একটাই সমস্যা তা হলো CB লেংলেটের সাসপেনশন, আর তার রিপ্লেস ছিলো ফর্মে ভোগা উমতিতী। কিন্তু সেতিয়েন মাঠে নামালেন সদ্য সিনিয়র টিমে প্রমোট হওয়া আারাওজো কে। সুযোগটা ভালো ভাবেই কাজে লাগালো আমাদের লা মাসিয়ান নতুন CB, ম্যাচে তার একুরেট পাস ছিলো ৯৮ টি যা ম্যাচের সর্বোচ্চ, এবং ম্যাচে রেটিং ছিলো ৭.৩। ফরওয়ার্ড এ কিছুটা চমক ছিলো, মেসি ফলস নাইন, গ্রিজি রাইট উইং এবং লেফ্টে ব্রাথওয়াইট।

৯০ মিনিট বিশ্লেষণঃ গোললললললল, আর্থুরো ভিদাললল। ম্যাচের মাত্র ৬৫তম সেকেন্ডে গোল করলো ভিদাল। ডি জং ডি-বক্সের বাইরে বল পেয়ে দ্রুত পাস করে বক্সের ভিতরে বাম পাশে থাকা আলবা কে, সাথে সাথে আলবার বাম পায়ের ক্রস এবং হেডে গোলা করে দলকে ০-১ এ এগিয়ে নেয় বিস্ট ভিদাল। খেলার ৫ মিনিটের সময় গোলের চান্স পায় মেসি। ভিদাল চিপ করে বল বাড়ায় মেসির দিকে কিন্তু বাঁধা হয়ে দাড়ায় মায়োর্কার ডিফেন্ডার। ৭ম মিনিটে গোলের সহজ সুযোগ মিস করে ব্রাথওয়াইট। রিবাউন্ড করে শট নিলে সেটি বাম পাশের বারপোস্টো স্পর্শ করে চলে যায়।

আজকের খেলা কখন, কোন চ্যানেলে দেখতে ক্লিক

৯ মিনিটের সময় কর্নার পাওয়ার সম্ভাবনা হয় মায়োর্কার, কিন্তু রেফারি এটি থ্রো ইন দেয়, থ্রো ইন করে টাকিফুসা কুবো, ((যাকে বলা হয় জাপানিজ মেসি। এই লা মাসিয়ান বর্তমানে রিয়াল মাদ্রিদ প্লেয়ার এবং লোনে খেলতেসে মায়োর্কা তে))। থ্রো ইন টি বক্সের ভেতরে বাধাগ্রস্ত হয় বার্সা ডিফেন্ডারের দ্বারা এবং আবার থ্রো ইন পায় মায়োর্কা। ১২ মিনিটে কর্নার পায় বার্সা, কিন্তু মেসি ভালো চান্স মিস করে। মায়োর্কার প্লেয়াররা প্রায় জীবন দিয়ে দিচ্ছিলো গোল বাঁচাতে। ১৫তম মিনিটে প্রায় গোল করেই ফেলেছিলো সার্জিও রবার্তো, কিন্তু বাধাঁ হয়ে দাড়ায় কোচো হার্নান্দেজ। প্রথম ১৫ মিনিট বলের পসেশনে সম্পুর্ন আধিপত্য বিস্তার করে বার্সা।

বাম পাশের মিডে কিছুটা ভালোই খেলছিলো মায়োর্কার সাস্ট্রে, রবার্তো কে ভালোই চ্যালেন্জ করে যাচ্ছিলো সে, আর কুবোও দারুন আশা জাগাচ্ছিলো। ২২ তম মিনিটে কুবো প্রায় গোল পেয়েই গেসিলো, কিন্তু অসাধারণ সেভ করে কুবোর খাতা খোলতে দেয়নি টার স্টেগেন। মার্ক পেডরাজা থেকে রাইট উইংয়প বল পেয়ে কয়েকজন বার্সা ডিফেন্ডার কে বিট করে অন গোল শট নেয় কুবো। ২৬ তম মিনিটে মায়োর্কা কর্নার পায়, কোচো দারুন একটা প্লেসমেন্ট করে বল পাঠায় ডি-বক্সের মাঝে কিন্তু রোনাল্ড আরাওজো সতর্কতার সাথে মায়োর্কার গেলের চান্স নষ্ট করে দেয়। ৩০ তম মিনিটে ডি-বক্সের ডানপাশের কোনায় ফ্রি কিক পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি মায়োর্কা। ৩২ তম মিনিটে গোলের একদম কাছাকাছি চলে যায় মায়োর্কা। কুবোর আগুন শট টা প্রতিহত করে বাজপাখি স্টেনগান। এরপরই দু-দলের প্লেয়াররা কুলিং ব্রেক নেয়।

দ্বিতীয় ১৫ মিনিট ভালোই ফাইট দেয় মায়োর্কার প্লেয়াররা, যদিও গোল আদায় করতে পারেনি তারা। ২৭ তম মিনিটে ব্রাথওয়াইটের গোলে ০-২এ এগিয়ে যায় বার্সা। কয়েকজন বার্সা প্লেয়ার বল নিয়ে জড়ো হয় মায়োর্কার ডি-বক্সের সামনে, ডি জং হেড করে বল পাস করে মেসিকে, মেসি পাস করে ব্রাথওয়াইট কে এবং সুন্দর একটা ফিনিশিংয়ের মাধ্যমে বার্সার জার্সিতে প্রথম গোল অর্জন করে ব্রাথওয়াইট। ৪১তম মিনিটে অনেকক্ষণ VAR দেখার পর অফসাইড হয় মায়োর্কার বুডিমির। কিন্তু হার্ড ট্যাকেল করে হলুদ কার্ড দেখে ভিদাল।

Martin Braihwaite
                                     মার্টিন ব্রাথওয়াইটের বার্সেলোনার হয়ে ১ম গোল। ফটো: মার্টিন ব্রাথওয়াইট

৪৫তম মিনিটে সহজ সুযোগ মিস করে বুডিমির, সাস্ট্রের ক্রস থেকে পেনাল্টি পজিশনে বল পেয়েও হেডে বল পাঠায় ডানদিকের বারপোস্টের বাইরে। পাঁচ মিনিট এক্সট্রা টাইম যোগ করেন রেফারি। ৪৫+৪ মিনিটে ডি জং ক্রস করে মেসির উদ্দেশ্যে, কিন্তু মায়োর্কার ক্যাপ্টেন গোলকিপার ম্যানোলো রেইনা বের হয়ে এসে গোলের চান্স নষ্ট করে দেয়। প্রথামার্ধ ডমিনেট করে বার্সা, কিন্তু রেলিগেশন থেকে বাঁচার জন্য প্রানপন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলো মায়োর্কার প্লেয়াররা।

দ্বিতীয়ার্ধ শুরু হয় তিনটা প্লেয়ার পরিবর্তন নিয়ে। মায়োর্কার গামেজ ও জুনিয়র মাঠে নামে সাস্ট্রে ও কোচো এর পরিবর্তে। অপরদিকে ভিদালের রিপ্লেস হয় ইভান রেকেটিচ। বলে রাখি, করোনাভাইরাস মহামারির কারনে প্রতিটি দল ৫ জন সাব করতে পারবে প্রতি ম্যাচে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুটা ভালোই করে মায়োর্কা, ৪৮ তম মিনিটে দারুন একটি ক্রস থেকে গোলের জন্য উপযুক্ত দূরত্বে বল পায় বুডিমির, কিন্তু তার শট বারপোস্টের বাইরে চলে যায়। ৫০ তম মিনিটে মায়োর্কার কর্নার ক্লিয়ার করে দেয় বার্সা ডিফেন্ডার। ৫৪ তম মিনিটে কুবোর ক্রস ব্লকড হয়ে আবারো কর্নার পায় মায়োর্কা, কিন্তু এটিও কাজে লাগাতে পারেনি তারা।

৫৭ মিনিটে গ্রিজম্যান এর রিপ্লেস হিসেবে মাঠে নামে ইন্জুরি ফেরত সুয়ারেজ। একই সময় মায়োর্কার মোহাম্মদ রিপ্লেসড হয় মার্ক পেডরাজার। ৫৮ তম মিনিটে অসাধারণ একটা গোলের সুযোগ পায় ব্রাথওয়াইট, ম্যানোলো রেইনা কে একা পেয়ে তার ডান দিকে লোয়ার শট নেয় ব্রাথওয়াইট, কিন্তু রেইনা ঠিক সময়ে ঝাঁপিয়ে পরে সেভ করে ফেলে। ৬৩ তম মিনিটে মেসির দারুন পাস থেকে ডি-বক্সের ভেতরে বল পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হয় সুয়ারেজ। এর কিছুক্ষণ আগেই একটা সহজ সুযোগ মিস করেছিলো আরাওজো। মেসি দারুন সব এসিস্ট কাজে লাগাতে পারছেনা কেউ। ৬৮ মিনিটে জুনিয়র ল্যাগোর পাস একুরেট না হলেও কোনোভাবে বল পেয়ে যায় কুবো, কিন্তু তার শট ব্লক করে দেয় জেরার্ড পিকে। কর্নার পায় মায়োর্কা, কিন্তু এবারো গোলে দেখা পায়না মায়োর্কা।

৭১ তম মিনিটে আর্থার ও সেমেডো মাঠে নামে বুস্কেটস ও রবার্তোর পরিবর্তে। ৭৫ মিনিটে লং রেঞ্জ থেকে জোরালো শট করলেও সেটি প্রতিহত করে আরাওজো এবং আবারো কর্নার পেয়ে গোলে পরিনত করতে ব্যর্থ মায়োর্কা। ৭৪ মিনিটে মেসির এসিস্ট থেকে গোলকিপারকে একা পেয়ে স্কোরলাইন ০-৩ করে জর্ডি আলবা। VAR চেক করে অফসাইড পায়নি রেফারি। ৮২ তম মিনিটে সুয়ারেজ অফসাইড হয়। মেসির খেলা হচ্ছিলো দুর্দান্ত, সাথে আলবা গোল করে ম্যাচ সেরা হওয়ার দৌড়ে আগে ছিলো।

ধারাভাষ্যকারের ভাষায় Messi has been phenomenal today. ৮৪ মিনিটে ডি জংয়ের রিপ্লেস হয় জুনিয়র ফিরপো। অপরদিকে মায়োর্কার বুডিমির ও সালভা সেভিয়ার পরিবর্তে নামে এবদন প্র্যাটস ও ইয়ানিস সালিবুর। ৮৮ তম মিনিটে আবারো এটাক করে মায়োর্কা, এটি ছিলো তাদের ১০ম শট, আর ততক্ষণ পর্যন্ত বার্সার শট ছিলো ৮টি মাত্র। কিন্তু মায়োর্কার সকল প্রান পন চেষ্টা ফলহীন করে দেয় বার্সা ডিফেন্স। হার্ড ট্যাকেলের জন্য হলুদ কার্ড দেখে মায়োর্কার রড্রিগেজ। ৯০+৩ মিনিটে কিং মেসি করে ৪র্থ গোল। এই সিজনে লা লীগায় এটি হলো মেসির ২০ তম গোল। সুয়ারেজের থেকে পাওয়া সহজ এসিস্ট থেকে কয়েকজন ডিফেন্ডার কে কাটিয়ে শট নেয় মেসি। স্কোর লাইন মায়োর্কা ০-৪ বার্সেলোনা। শেষ সময় ৯০+৫ মিনিটে সহজ সুযোগ পেয়েও মিস করে সুয়ারেজ। পূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছারে বার্সা। দুই এসিস্ট ও এক গোল সহ রেটিং পয়েন্ট ১০ নিয়ে ম্যাচ সেরা মেসি।

এই হারের ফলে মায়োর্কা রেলিগেশন জোনেই রয়ে গেলো। অপরদিকে ২৮ ম্যাচে ৬১ পয়েন্ট নিয়ে টপ পজিশন নিশ্চিত করে রাখলো বার্সা। ২৭ ম্যাচে ৫৬ পয়েন্টে থাকা রিয়াল মাদ্রিদ আজকে জিতলেও ৫৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানেই থাকতে হবে।

লেখাটি শেয়ার করুন

spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Related articles

আরো খবর

বিজ্ঞাপনspot_img

LATEST ARTICLES

2,875FansLike
8FollowersFollow
942FollowersFollow
81SubscribersSubscribe